islam

কসাইকে পারিশ্রমিক হিসেবে কুরবানির গোশত দেওয়ার বিধান


▌কসাইকে পারিশ্রমিক হিসেবে কুরবানির গোশত দেওয়ার বিধান · বিগত শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ ফাক্বীহ ও মুহাদ্দিস, ইমাম মুহাম্মাদ বিন সালিহ আল-‘উসাইমীন (রাহিমাহুল্লাহ) [মৃত: ১৪২১ হি./২০০১ খ্রি.] বলেছেন— وأما إعطاء الجزار أجرته منها فلا يجوز. وأما إعطاؤه هدية منها فلا بأس به. “কুরবানির পশুর কোনো অংশ কসাইকে তার পারিশ্রমিক হিসেবে দেওয়া না-জায়েজ। তবে তাকে তা থেকে উপঢৌকন হিসেবে কিছু দেওয়ায় কোনো সমস্যা নেই।” [ইমাম ‘উসাইমীন (রাহিমাহুল্লাহ), মাজমূ‘উ ফাতাওয়া ওয়া রাসাইল, খণ্ড: ২৫; পৃষ্ঠা: ১১০; দারুস সুরাইয়্যা, রিয়াদ কর্তৃক প্রকাশিত; সন: ১৪২৯ হি./২০০৮ খ্রি. (১ম প্রকাশ)] · বিগত শতাব্দীর সর্বশ্রেষ্ঠ মুহাদ্দিস ও ফাক্বীহ, ইমাম মুহাম্মাদ নাসিরুদ্দীন আলবানী (রাহিমাহুল্লাহ) [মৃত: ১৪২০ হি./১৯৯৯ খ্রি.] কে প্রশ্ন করা হয়েছে— ماذا على الذي جعل شيئا من أضحيته أجرا للجزار؟ فأجاب بقوله: يتوب إلى الله. السائل: وإذا كان يعلم ذلك؟ فهل عليه أضحية جديدة؟ الشيخ: لا، ما عليه أضحية جديدة. “যে ব্যক্তি তার কুরবানির পশুর কিয়দংশ দিয়ে কসাইয়ের পারিশ্রমিক দিয়েছে, তার ওপর কী বিধান বর্তাবে?” তিনি (রাহিমাহুল্লাহ) জবাবে বলেছেন, “সে আল্লাহ’র কাছে তওবা করবে।” প্রশ্নকারী: “সে যদি এ ব্যাপারে না জেনে থাকে, তাহলে কি তাকে নতুন কুরবানি দিতে হবে?” শাইখ: “না, তার ওপর কোনো নতুন কুরবানি নেই।” [ইমাম আলবানী (রাহিমাহুল্লাহ), সিলসিলাতুল হুদা ওয়ান নূর; ৫৬৪ নং অডিয়ো ক্লিপ] · উৎস: আজুর্রি (ajurry) ডট কম। · অনুবাদক: মুহাম্মাদ ‘আব্দুল্লাহ মৃধা www.facebook.com/SunniSalafiAthari